Saturday, June 25, 2022
Google search engine
HomeUncategorizedমোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম | ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপস

মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম | ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপস

ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপস: অনলাইন মাধ্যমগুলোর ব্যাপক উপলব্ধতা ও অটুট ইন্টারনেট সংযোগের কারণে, মোবাইলে বাস, গাড়ি, থেকে শুরু করে ট্রেন কিংবা প্লেনের টিকিট কাটাও হয়ে উঠেছে দারুণ সোজা কাজ। 

আপনি যদি মোবাইলে টিকিট কাটার ব্যাপারে নতুন হয়ে থাকেন, তবে আপনি এই আর্টিকেল থেকে আপনি বিস্তারিতভাবে জানতে চলেছেন, মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম সম্পর্কে। 

মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

অনলাইন রেলের টিকিট বুকিং করাটা কঠিন হতে পারে, যদি আপনি IRCTC (ইন্ডিয়ান রেলওয়ে কেটারিং অ্যান্ড ট্যুরিজম কর্পোরেশন) ওয়েবসাইটের সাথে পরিচিত না হন। 

আপনি যদি এই ওয়েবসাইটটি প্রথমবারের জন্যে ব্যবহার করতে চলেছেন, তাহলে এটা একটু জটিল মনে হতে পারে। 

IRCTC-এর ওয়েবসাইটে প্রচুর পরিমাণ তথ্য রয়েছে, যা একদিকে যেমন ভালো, তেমনই অন্যদিকে তা সাধারণ ব্যবহারকারীকে বিভ্রান্ত করতে পারে। 

তাই, এখানে আমরা আপনার সুবিধার জন্য ধাপে-ধাপে ট্রেনের টিকিট বুক করার পদ্ধতি গুলো নিয়ে সহজভাবে আলোচনা করলাম –

মোবাইলে রেল টিকিট কাটার ধাপ:

১. IRCTC-এর ওয়েবসাইটে (https://www.irctc.co.in/nget/train-search) যান – 

এটি ভারতীয় রেলওয়ের অফিসিয়াল ওয়েব পোর্টাল, যার সাহায্যে আপনি যেকোনো ট্রেনের অনলাইন টিকিট কাটতে পারবেন। 

২. আপনার অ্যাকাউন্টে সাইন ইন করুন – 

আর, যদি ইতিমধ্যে আপনার কোনো অ্যাকাউন্ট না থাকে, তাহলে সাইন-আপ প্রক্রিয়ার সাহায্যে রেজিস্টার করুন। 

রেজিস্টার করা হয়ে গেলে আপনার অ্যাকাউন্টে লগ ইন করুন।

৩. ওয়েবসাইটের বাঁদিকে থাকা কোন স্টেশন থেকে আপনি ট্রেনে উঠবেন ও আপনার গন্তব্যস্থান নির্বাচন করে, যাত্রার তারিখ উল্লেখ করুন।

৪. এবার ‘submit’ বাটনে ক্লিক করলে আপনাকে আপনার যাত্রার তারিখে, আপনার উল্লেখিত রুটে উপলব্ধ সমস্ত ট্রেনগুলোর নাম ও সময়ের তালিকা দেখানো হয়।

৫. এইবার যে ট্রেনটি আপনার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত ও আপনি কোন ক্লাসে ভ্রমণ করতে চান সেগুলো বেছে নিতে হবে।

৬. একবার আপনি ক্লাসে ক্লিক করলে, একটা নতুন উইন্ডো খোলে যা আপনার টিকিটের মূল্যসহ অ্যাভেইলিবিলিটি বা ওয়েটিং সংখ্যা উল্লেখ করে।

আপনি যদি ওয়েটিং লিস্টেই টিকিট বুক করতে চান, তাহলে সেই নম্বরে ক্লিক করতে হবে। 

তখন এটি আপনাকে আরেকটি নতুন উইন্ডোতে নিয়ে যাবে, যেখানে আপনাকে ভ্রমণকারী যাত্রীদের সমস্ত বিবরণ ফিল করতে হবে। 

এবং, তারপর আপনাকে ‘book’ বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৭. আপনার টিকিটের বিবরণের সারাংশসহ আরও একটা নতুন উইন্ডো খুলবে, যা আপনাকে শেষ পর্যন্ত ‘make payment’-এর বিকল্প দেবে।

৮. আপনি যেকোনো মেক পেমেন্ট বিকল্পে ক্লিক করলে, তা আপনাকে IRCTC ওয়েবসাইটের একটা নতুন পেজে নিয়ে যাবে- যা আপনাকে নানা ধরণের অর্থপ্রদানের (যথা- ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড, ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং ও ইত্যাদি) বিকল্প দেখাবে।

এরপর, আপনার পছন্দের পেমেন্ট মোডে ক্লিক করুন।

৯. অর্থপ্রদানের লেনদেনের প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ হলে, আপনাকে IRCTC ওয়েবসাইটে ফেরত পাঠানো হবে ও সেটা আপনাকে জানিয়ে দেবে যে, আপনার পেমেন্ট হয়ে গেছে এবং আপনার ট্রেন টিকিট কাটা হয়ে গেছে।

১০. আপনার অনলাইন রেলের টিকিট কাটা হলে, সেই টিকিটের প্রিন্টআউট নিতে পারেন বা অনলাইনেই তা রাখতে পারেন।

যদি আপনার ওয়েটিং টিকেট থাকে, তাহলে সেই টিকিটের লাইভ স্ট্যাটাস দেখতে, টিকিট লাইনে দেওয়া PNR স্ট্যাটাস ও ইত্যাদির বিবরণ ব্যবহার করুন।

ভারতীয় রেলের টিকিট বুকিং-এর নতুন নিয়ম:

কোভিডের কারণে, দীর্ঘ সময় ধরে টিকিট বুক করেননি এমন যাত্রীদের জন্য রেলওয়ে নতুন নিয়ম এনেছে। 

IRCTC পোর্টাল থেকে টিকিট কাটতে এই যাত্রীদের প্রথমে তাদের মোবাইল নম্বর ও ইমেল আইডি যাচাই করার পর তবেই তারা টিকিট পেতে পারবেন। 

তবে, যেসব যাত্রীরা নিয়মিত টিকিট বুক করেছেন, তাদেরকে এই প্রক্রিয়াটির ব্যবহার করতে হবে না।

মোবাইলে টিকিট বুকিং পরিষেবা:

IRCTC ভারতীয় রেলওয়ের অধীনে অনলাইনে টিকিট কাটার অনুমতি দেয়। 

এই IRCTC-এর পোর্টালে যাত্রীরা টিকিটের জন্য লগইন করে পাসওয়ার্ড তৈরি করে। 

একটা লগইন পাসওয়ার্ড তৈরি করার জন্যে আপনাকে ইমেল ও ফোন নম্বর দিতে হবে। 

অর্থাৎ, আপনার ইমেল আইডি ও ফোন নম্বর যাচাই হওয়ার পরেই টিকিট বুক করতে পারবেন।

কিভাবে যাত্রীর অ্যাকাউন্ট যাচাই করা হয় ?

যখন IRCTC পোর্টালে লগইন করা হয়, তখন যাচাইকরণের একটা উইন্ডো খোলে। 

এখানে ইতিমধ্যে রেজিস্টার্ড ইমেল ও মোবাইল নম্বর লিখুন। 

এখন বাঁদিকে এডিট ও ডানদিকে ভেরিফিকেশনের অপশন আছে। 

আপনি এডিট বিকল্পকে নির্বাচন করে আপনার নম্বর বা ইমেল পরিবর্তন করতে পারেন। 

ভেরিফিকেশন বিকল্পটি নির্বাচন করলে, আপনার নম্বরে একটা ওটিপি (ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড) যাবে। 

ওটিপি আপনার মোবাইলে এলে আপনার অ্যাকাউন্টটি যাচাই করা হয়ে যাবে। 

ইমেলের জন্যও একইভাবে মেইল আইডিতে যাচাইকরণ করা হয়। 

এক্ষেত্রে, ইমেলে পাওয়া ওটিপির মাধ্যমে যাচাই করা হয়ে থাকে।

IRCTC-এর ওয়েবসাইট ছাড়াও, বর্তমান সময়ে অনেক মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে- যার সাহায্যে আপনি আরও সহজেই রেল টিকিট বুক করে নিতে পারেন। 

  • সবচেয়ে ভালো মোবাইল ক্যামেরা অ্যাপ

সেরা ৬টি ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপস-এর তালিকা:

নিচে, আমরা ভারতের কতগুলো সেরা, নিরাপদ ও ঝামেলাহীন ট্রেনের টিকিট বুকিং অ্যাপের কথা উল্লেখ করলাম –

১. ixigo:

ভারতের মধ্যে সবথেকে জনপ্রিয় ও বিশ্বাসযোগ্য ট্রেন বুকিং অ্যাপগুলোর মধ্যে একটি হল ixigo। 

এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি সহজেই আইআরসিটিসি-এর থেকে রেল টিকিট বুক করতে পারবেন, PNR স্ট্যাটাস চেক করতে পারবেন এবং আপনার ট্রেনের রিয়েল-টাইম স্ট্যাটাসও দেখতে পারবেন। 

এছাড়াও, এই অ্যাপের সাহায্যে আপনি ওয়েটলিস্টেড থাকা টিকিটের বদলেও কন্ফার্ম সিট পেতে পারেন। 

এখানে ট্রেনের স্ট্যাটাস আপনি ইন্টারনেট সংযোগ ছাড়াই দেখতে পারবেন। 

আপনি ixigo থেকে বিনামূল্যেই ট্রেন টিকিট ক্যানসেল করতে পারেন। 

আপনি এই অ্যাপের সাহায্যে বাসও বুক করতে পারেন। 

এছাড়াও, আপনি এখানে লোকাল মেট্রো ও ট্রেনের (দিল্লি, কলকাতা, পুনে, ব্যাঙ্গালোর, লখনৌ, জয়পুর ও কোচি) তথ্যও পেয়ে যাবেন।       

বৈশিষ্ট্য:

– ট্রেন সিটের উপলব্ধতা 

– PNR স্ট্যাটাস ও প্রেডিকশান

– বিনামূল্যের টিকিট ক্যান্সেলেশন 

– লোকাল বাস, ট্রেন ও মেট্রোর ইনফরমেশন 

২. IRCTC Rail Connect:

IRCTC Rail Connect অ্যাপটি ভারতের সবথেকে বেশি নির্ভরযোগ্য রেল টিকিট বুকিং অ্যাপ্লিকেশন। 

এখানে একজন নতুন ব্যবহারকারী খুব সহজেই রেজিস্টার করে নিজের অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারেন। 

এই অ্যাপের সুরক্ষিত স্ব-নির্ধারিত PIN আপনাকে ইউসার নাম ও পাসওয়ার্ড ছাড়াই লগইন করতে দেয়। 

এই অ্যাপ্লিকেশনের ড্যাশবোর্ড থেকে আপনি সরাসরি ট্রেন খুঁজতে, রুট খুঁজতে ও ট্রেন সিটের উপলব্ধতা দেখে নিতে পারেন। 

এখানে PNR কনফার্মেশনের মাধ্যমে সহজেই ওয়েটলিস্টেড সিটের স্ট্যাটাস দেখা যায়। 

আধার কার্ডের সাথে এই অ্যাপকে সংযুক্ত করলে, আপনি মাসে প্রায় ১২টা পর্যন্ত টিকিট কাটতে পারবেন। 

‘বিকল্প’ স্কিমের সাহায্যে এখানে সহজেই কন্ফার্মড বার্থ বা সিট্ বুক করতে পারেন। 

এখানে আপনি অনেক ধরণের অনলাইন পেমেন্টের অপশন পেয়ে যাবেন। 

জেনারেল কোটা ট্রেন টিকেটের মধ্যে আলাদা করে সিনিয়র সিটিজেন, লেডিস, প্রিমিয়াম তৎকাল, তৎকাল ও দিব্যাঞ্জনের বিকল্পও পাওয়া যায়।      

বৈশিষ্ট্য:

– PNR রিসার্ভেশন স্ট্যাটাস

– লগইন করার জন্য স্ব-নির্ধারিত পিন আসে

– বিভিন্ন অনলাইন পেমেন্ট মোড উপলব্ধ আছে

– ‘বিকল্প’ স্কিমের মাধ্যমে কন্ফার্মড সিট বা বার্থ বুক করা যায়   

– আধার লিঙ্কিং সুবিধার সাহায্যে মাসিকভাবে ১২টা টিকিট বুক করা যায়

৩. ConfirmTkt:

ConfirmTkt অ্যাপটি IRCTC দ্বারা স্বীকৃত একটা ট্রেন টিকিট বুকিং অ্যাপ্লিকেশন। 

এখানে আপনি সহজেই কন্ফার্মড বুকিং টিকিট কাটতে পারবেন। 

এই অ্যাপটি আপনাকে টিকিট ক্যানসেল করার জন্যে সম্পূর্ণ রিফান্ড ফেরত দেয়। 

ConfirmTkt অ্যাপ্লিকেশনের সঠিক ওয়েটলিস্ট প্রেডিক্শনের মাধ্যমে আপনি বেশিরভাগ সময়েই কন্ফার্ম টিকিট পেয়ে যেতে পারেন। 

এখানে আপনি ২৪X৭ কাস্টমার সাপোর্ট পাবেন। 

এর স্পেশাল সেম ট্রেন অল্টারনেটিভ ফিচারের সাহায্যে আপনি আপনার পছন্দের ট্রেনের সহজ অল্টারনেটিভ পেতে পারবেন। 

এছাড়াও, এটির মাল্টিমোডাল অল্টারনেট ফিচারের মাধ্যমে ট্রেন ও বাসের যথার্থ কন্ফার্ম টিকিট পাওয়া সম্ভব। 

আপনি IRCTC-এর ট্রেনের তারিখ ও লোকেশন ব্যবহার করে ট্রেনের সিটের উপলব্ধতা দেখতে পারেন। 

বৈশিষ্ট্য:

– লাইভ GPS ট্র্যাকিং ও স্কেডিউলস 

– ট্রেনের সিটের উপলব্ধতা জানা সহজ 

– বিনামূল্যে টিকিট ক্যান্সেলেশনের সুবিধা 

– PNR স্ট্যাটাস পরিবর্তনের নোটিফিকেশন  

– সব ধরণের অনলাইন পেমেন্ট মোডের সুবিধা 

মূলত, redRail অ্যাপটি IRCTC-এর অনুমোদিত পার্টনারশিপের অন্তর্ভুক্ত ট্রেনের টিকিট বুকিং অ্যাপ্লিকেশন। 

এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি অত্যন্ত সহজে ও দ্রুত টিকিট বুক করে নিতে পারবেন। 

এখানে আপনি রেল টিকিট কাটা ছাড়াও, ট্রেন স্ট্যাটাস ও PNR স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন। 

এমনকি, আপনি সহজেই আপনার ট্রেনের প্ল্যাটফর্ম নম্বরও দেখে নিতে পারেন। 

আপনার পছন্দের রুটের ট্রেনের উপলব্ধ সিট এই অ্যাপের সাহায্যে সহজেই দেখে নেওয়া যায়। 

এই রেলওয়ে অ্যাপ্লিকেশনটি আপনাকে সহজেই লাইভ ট্রেন রানিং স্ট্যাটাস দিয়ে থাকে।  

বৈশিষ্ট্য:

– PNR ট্রেন স্ট্যাটাস চেকিং 

– লাইভ ট্রেন রানিং স্ট্যাটাস 

– IRCTC ট্রেন ফেয়ার চেক করার সুবিধা 

– ট্রেন স্ট্যাটাস, PNR স্ট্যাটাস ও প্ল্যাটফর্ম নম্বর চেক করা 

– ইউসার-ফ্রেন্ডলি ইন্টারফেসের জন্যে ব্যবহার করা সহজ 

৫. MakeMyTrip: 

MakeMyTrip অ্যাপটি হল আপনার ভ্রমণের সেরা সঙ্গীর পাশাপাশি ট্রেনে টিকিট কাটারও সেরা একটা অ্যাপ্লিকেশন। 

এই IRCTC স্বীকৃত অ্যাপের মাধ্যমে আপনি তৎকাল ও স্পেশাল ট্রেনের কন্ফার্মড ই-টিকিট কাটতে পারবেন। 

আপনি এখানেও সহজেই রেলের লাইভ লোকেশন স্ট্যাটাস দেখে নিতে পারবেন। 

এছাড়াও, এই অ্যাপ্লিকেশনেই আপনি ক্যাব, ফ্লাইট, হোমস্টে, ট্রাভেল হলিডে, হোটেল ও বাসও বুকিং করতে পারেন। 

এই ট্রাভেল অ্যাপের সাহায্যে আপনি একটা সমগ্র ট্যুরের প্ল্যানও করে নিতে পারবেন। 

বৈশিষ্ট্য:

– এখানে PNR স্ট্যাটাস চেক করা সহজ 

– নানা ধরণের সার্ভিসের বুকিং করা সম্ভব  

– দ্রুত ট্রেনের লাইভ লোকেশন দেখে নেওয়া যায় 

– রেল সিটের উপলব্ধতা সহজেই দেখে নেওয়া যায়  

– এখানে তৎকাল ও অন্যান্য স্পেশাল ট্রেনে কন্ফার্ম টিকিট দেওয়া হয় 

৬. SmartTkt:

SmartTkt অ্যাপ্লিকেশনটি হল একটি অল-ইন-ওয়ান অ্যাপ। 

অর্থাৎ, এখানে আপনি ইন্ডিয়ান রেল টিকিট বুক করা থেকে শপিং, ট্রাভেলিং, এন্টারটেইনমেন্ট-এর মতো সমস্ত পরিষেবাই পেতে পারেন। এখানে আপনি ট্রেনের লাইভ স্ট্যাটাস, ও PNR স্ট্যাটাসও দেখে নিতে পারেন। 

এছাড়াও, আপনি তৎকাল টিকিট বুকিং-এর পাশাপাশি ট্রেনের সিট ও ভাড়া সম্পর্কেও বিস্তারিত তথ্য পেয়ে যাবেন। 

এমনকি, ট্রেনের নানান স্টেশনের নামগুলোও দেখে নিতে পারেন। 

আপনি এখানে ট্রেনের টাইম টেবিল ও কোচ পজিশনও চেক করতে পারবেন। 

আপনি এই অ্যাপ ব্যবহার করে ফ্লাইট টিকিট, বিল পেমেন্ট ও মোবাইল রিচার্জের সুযোগও পাবেন। 

তাছাড়া, আপনি এর ‘near by’ অপশন থেকে আপনার কাছাকছি থাকা পেট্রল পাম্প, এয়ারপোর্ট, মেডিকেল স্টোর, হাসপাতাল, রেস্টুরেন্ট ও আরও অন্যান্য লোকেশনও দেখতে পারবেন।     

বৈশিষ্ট্য:

– ট্রেন, ফ্লাইট টিকিট কাটা যায় 

– নিউস ও এন্টারটেইনমেন্ট পাওয়া যায় 

– তৎকাল ও স্পেশাল ট্রেনের টিকিট পাওয়া যায়

– অনলাইন শপিং, বিল পেমেন্ট ও মোবাইল রিচার্জ করা সম্ভব

– এর ‘near by’ অপশন থেকে নানান লোকেশনের খোঁজ পাওয়া সম্ভব   

আমাদের আজকের মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম নিয়ে লেখা আর্টিকেলটি এখানেই শেষ হল।

লেখাটি পছন্দ হলে অবশ্যই তা কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments